পায়ের তালুতে ছোট ছোট গর্ত সমস্যা সমাধান

 প্রিয় বন্ধুরা, আপনার কি পায়ের তালুতে ছোট ছোট গর্ত হয়েছে। তাহলে মনোযোগ সহকারে আর্টিকাটি পড়ুন। কেননা আজ আমরা পায়ের তালুতে ছোট ছোট গর্ত এবং পায়ের তালুর রোগ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। অর্থাৎ আপনি যদি পায়ের তালুতে ছোট ছোট গর্ত হওয়ার কারণ এবং এর সমস্যা সমাধান জান তাহলে আমাদের পোস্টটি ভিজিট করুন।

পায়ের তালুতে ছোট ছোট গর্তসাধারণত পায়ের তালুতে ছোট ছোট গর্ত হয়ে থাকে তালুতে ইনফেকশন হওয়ার কারণে। এই ইনফেকশন থেকে পায়ের তালুতে দূর করতে আজ আমরা কিছু উপায় বলবো যেগুলো থেকে আপনারা খুব সহজেই পায়ের তালুর ইনফেকশন দূর করে পায়ের তালুর গর্তগুলো দূর করতে পারবেন।

পোস্ট সূচিপত্রঃপায়ের তালুতে ছোট ছোট গর্ত সমস্যা সমাধান 

ভূমিকা?;পায়ের তালুতে ছোট ছোট গর্ত

আজ আমাদের এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য গুরুত্বপূর্ণ হতে যাচ্ছে কারণ এই আর্টিকেল এর মধ্য থেকে আপনারা খুব সহজেই কিছু উপায় জেনে আপনাদের পায়ের তালুতে ছোট ছোট গর্ত ওগুলো দূর করতে পারেন। এবং এগুলো কি কারণে হয়ে থাকে। এছাড়াও আপনারা সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি ভালোভাবে ভিজিট করলে আপনার পায়ের তলায় এবং পায়ের তালুর রোগ গুলো অর্থাৎ এক কথায় আপনার পায়ের তালুর যেকোনো সমস্যার সমাধান পেয়ে যেতে পারেন।

তাই আর দেরি না করে জানুন এবং রোগ থেকে মুক্ত হয়। কথা না বাড়িয়ে আসুন জেনে নেই।

পায়ের তালুতে ছোট ছোট গর্ত 

আপনার কি কয়েক মাস যাবত পায়ের তালুর চামড়া উঠে গিয়ে পায়ের তালুতে ছোট ছোট গর্ত তে পরিণত হচ্ছে। আপনি যদি এটার সমস্যার সমাধান জানতে চান এবং এটা কি কারনে হয়ে থাকে তা জানতে চান তাহলে সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন। চলুন জেনে নেই।

আরো পড়ুনঃ মোবাইল দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখব

পায়ের তালুতে ছোট ছোট গর্ত হওয়া এটি এক ধরনের চর্মরোগ। যা আপনার পায়ে ইনফেকশন হওয়ার কারণে হয়। এটি তেমন কোন বড় রোগ নয়। এই ইনফেকশন বা পায়ে গত হওয়ার কারণ আপনি অতিরিক্ত কাদায় এবং খালি পায়ে মাটিতে দীর্ঘদিন যাবত হাঁটাহাঁটি করেছেন তাই। এর ফলে আয় আপনার পা অতিরিক্ত ঘামে এবং দুর্গন্ধযুক্ত হয় এর ফলে এখানে ইনফেকশন হয়ে আপনার পায়ের তালুতে ছোট ছোট গর্ত হয়ে যায়।

আপনি যদি নিয়মিত পায়ের সেন্ডেল ব্যবহার করেন এবং তাকে শুকনো রাখেন এবং অতিরিক্ত ভাবে খালি পায়ে মাটিতে বা কাঁদাতে হাঁটাহাঁটি না করেন। তাহলে এটা আস্তে আস্তে ঠিক হয়ে যাবে । এবং আপনি যদি রাতে প্রতিদিন পাউডার এবং নারিকেল তেল মিশিয়ে পায়ের তালুতে মাখেন তাহলে আপনার পা আর অতিরিক্ত ঘামবে না এবং দুর্গন্ধ ছড়াবে না এর ফলে আপনি ইনফেকশন থেকে রক্ষা পেতে পারেন।

 তবে আপনার পায়ে যদি খুব বেশি গর্ত হয়ে থাকে তাহলে আপনাকে দ্রুত সাধারণ একটি ডাক্তারের কাছে যেতে হবে। এবং সেই ডাক্তারের নিয়ম পরামর্শ অনুযায়ী আপনাকে ট্রিটমেন্ট নিতে হবে।

পায়ের তালুর রোগ

আমাদের পায়ের তালুতে নানান ধরনের রোগ হয়ে থাকে। সেই রোগগুলো কিভাবে হয় এবং সেটে ওঠে তার কিছু বিস্তারিত আলোচনা করেছি। নিচে উল্লেখ করা হলো;

  • গেটেবাত
  • হ্যামার টো
  • নখকুনি
  • বুনিয়ন
  • পায়ের তালু শক্ত হওয়া
  • প্ল্যানটার ওয়াটস

পায়ের তালু আমাদের শরীরের একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। এ পায়ের তালুর ওপর ভর দিয়ে আমরা দাঁড়িয়ে থাকি এবং হাটাহাটি করি। তাই আমাদের পায়ে তালুতে কোন ধরনের সমস্যা হলে আমরা নানান ধরনের সমস্যায় পড়ে থাকি। 

গেটেবাতঃ এই রোগটি হলে, আঘাত ছাড়াই হঠাৎ করে পায়ের বুড়ো লোগ ফুলে যায় এবং লাল হয়ে যায়। এবং যে জায়গাটা ফুলে গিয়েছে সেই জায়গাটা গরম অনুভব করা । এটা ভালো করার জন্য আপনাকে কয়েক দিন ধরে কুসুম কুসুম গরম পানিতে লবণ মিশ্রণ করে ওই পানির ভেতরে পা ভিজিয়ে রাখতে হবে।

হ্যামার টোঃ এই রোগ হলে আঙ্গুলের মাঝামাঝি অংশটা বেঁকে যায় তখন এটাকে দেখতে ঠিক হাতুড়ির মতো মনে হয়। এটি হলে বেঁকে যাওয়া জয়েন্টের জায়গায় সিলিকন লাগিয়ে সমস্যাটি দূর করা সম্ভব। তবে মনে রাখবেন এটি সময়মতো চিকিৎসা না নিলে অপারেশনের প্রয়োজন হতে পারে।

আরো পড়ুনঃ লুডু খেলে ইনকামের উপায় জানুন

নখকুনিঃ এ রোগ হয় সাধারণত পায়ের আঙ্গুল এর নখের পাশের অংশ দিয়ে ময়লা আবর্জনা প্রবেশ করে তখনই নখকুনি সৃষ্টি হয়। এর ফলে আপনার ফুলে ব্যথা সৃষ্টি হতে পারে । তবে এর জন্য প্রাথমিক চিকিৎসা হচ্ছে হালকা গরম পানিতে লবণ মিশিয়ে আপনার নখকুনি অংশটি ওই পানিতে ভিজিয়ে রাখতে হবে।

বুনিয়নঃ যখন আপনার পায়ের আঙ্গুলের বাহিরের দিকের হাড়টি ফুলে ওঠে এবং কোন সময়ে ফুলে বাহিরের দিকে বেরিয়ে আসে তখনই বুঝতে হবে এই রোগটা হচ্ছে বুনিয়ন রোগ। এই রোগটি দেখা দিলে আপনাকে খুব দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

পায়ের তালু শক্ত হওয়াঃ অতিরিক্ত ভাবে বারবার পায়ের তালুতে চাপ পড়ার কারণে চামড়ার কোন এক জায়গায় শক্ত হয়ে যায়। এতে পরে ব্যথা সৃষ্টি হয়। তবে এই রোগটি বেশিরভাগ হয় আপনার জুতো পড়ে থাকার কারণে। তবে আপনাকে যদি এই রোগটা জুতাপ করার কারনে হয়ে থাকে তবে আপনাকে ওই জুতোটা চেঞ্জ করতে হবে।

প্ল্যানটার ওয়াটসঃ এই রোগটি হলে সাধারণত আপনার পায়ের তালুতে নিচের অংশে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র দানার মত কালো একটি দাগ পড়বে তখন আপনাকে বুঝতে হবে যে এটা প্ল্যানটার ওয়াটস রোগ হয়েছে। সাধারণত এটি এই ধরনের ভাইরাসের কারণে সৃষ্টি হয়, সে ভাইরাসটি হল হিউম্যান পেপিলোমা।

এই রোগ গুলো আপনাকে এড়াতে হলে যা যা করতে হবে তা হচ্ছে;

আপনার শরীরের যদি ইস্নায়ুতন্ত্র ও ডায়াবেটিসের সমস্যা থাকে তাহলে খুব দ্রুতই চিকিৎসা নিন এবং আপনার পায়ের আকৃতি ও ডাক্তারের কাছে চিকিৎসা গ্রহণ করতে হবে।

এছাড়াও আপনি প্রয়োজন মোতাবেক চর্ম রোগ বিশেষজ্ঞ এর কাছ থেকে আপনি চিকিৎসা গ্রহণ করতে পারেন।

পায়ের তালুতে কড়া

যখন আমাদের পায়ের তালু শক্ত ও তালুর চামড়া আবরণ দেখা দেয় তখন একে কড়া বলা হয়। এটা হওয়ার কারণ আমরা অতিরিক্ত খালি পায়ে হাঁটাহাঁটি করি, এবং শক্ত জায়গায় আমরা বেশিরভাগ চলাফেরা করি এর জন্য আমাদের পায়ে কড়া পড়ে। এগুলো দেখতে প্রায় গোলাকারের মতো এবং এদের আকার খুবই ছোট হয়ে থাকে। এটির তির্যক অংশটি পায়ের তালুর চামড়ার ভেতরের দিকে থাকে।

আরো পড়ুনঃ ২০২৩ সালে ওয়ালটন ফ্রিজের দাম কত

 এজন্য এটাকে ভেতরের অংশের দিকে চাপ দিলে ব্যথা অনুভব করা যায়। এবং চলাফেরা করার সময় ব্যথা অনুভব করতে পারি। তবে এর জন্য ঘাবড়ানোর কিছুই নেই এটি এমনিতেই আসতে আসতে সেরে যায় আমরা যদি অতিরিক্ত চলাফেরা না করি এবং শক্ত জায়গায় খালি পায়ে না হাটাহাটি করি, এছাড়াও নিয়ম মেনে চিকিৎসকের পরামর্শ নিলে খুব দ্রুত এটি ভালো হয়ে যাবে।

পায়ের তালুতে ফোসকা

সাধারণত আমরা যখন কোন নতুন সেন্ডেল বা জুতা পরিধান করি, এবং সেটা পরে চলাফেরা করার সময় নতুন জুতাটি শক্ত হওয়ায় জুতার অংশটি আমাদের পায়ে ঘর্ষণ লেগে লেগে তখন আমাদের পায়ে এবং পায়ের তালুতে ফোসকা সৃষ্টি হয়। এবং যাদের পা অতিরিক্ত ঘামে তাদের এটি বেশি হয়। কারণ পা ঘামার ফলে ঘামটি জুতোই লেগে যায় তখন জুতোর অংশ ভিজে আমাদের পায়ে লেগে থেকে পায়ের সঙ্গে ঘষে ঘষে আমাদের পায়ে ফোসকা পড়ে যাই।

নিচে পায়ের তালুর এবং পায়ের ফোসকা কমানোর ঘরোয়া কয়েকটি কিছু উপায় উল্লেখ করা হলোঃ

এলোভেরাঃ এলোভেরা ফোসকা কমাতে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। আমাদের পায়ের ক্ষতস্থান বা খোলা জায়গা কমাতে এন্টি ইনফ্লামেন্টারি বেশ কার্যকরী, আর এই  এন্টি ইনফ্লামেন্টারি এলোভেরা তে রয়েছে। এটি ভালো করার জন্য এলোভেরা জেল পায়ে লাগিয়ে নিতে হবে তারপরে শুকিয়ে গেলে গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। আপনাকে দিনে দুই থেকে তিনবার লাগাতে হবে।

নারিকেলের তেলঃ আমাদের পায়ের ফোলা এবং ক্ষতস্থান এর ব্যথা কমাতে ফ্যাটি অ্যাসিড খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। আর এই ফ্যাটি এসিড টি নারিকেলে বিদ্যমান। তাই এটি আপনি নিয়মিত খোলা এবং ক্ষতস্থানে দিনে তিন থেকে চারবার লাগাতে পারেন এরপরে আপনার ত্বককে আদ্র এবং নমনীয় রাখবে।

আরো পড়ুনঃ ৫০০০ টাকায় ল্যাপটপ কিনতে চাইলে বিস্তারিত জানুন

পেট্রোলিয়াম জেলিঃ কুসুম গরম পানিতে পায়ের ওই ক্ষত এবং খোলা জায়গাটি  কিছুক্ষণ যাবত ধুয়ে ফেলুন। এরপর পেট্রোলিয়াম জেলি পায়ে ভালোভাবে লাগিয়ে নিন। তাহলে খুব দ্রুতই ওই জায়গাটির ফোলা কবে যাবে ।

লবণ পানিঃ শরীরের যেকোনো ব্যথা কমাতে লবণ পানি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। তাই আপনি হালকা কুসুম গরম পানিতে লবণ মিশিয়ে আপনার ক্ষত এবং ফোসকা পড়া জায়গাটিকে ঠেক দিতে হবে।

পায়ের কড়া দূর করার ক্রিম

পায়ের কড়া দূর করার ক্রিম গুলোর নাম হচ্ছে;

  • ফরইভারটিন
  • চারমিং প্রীং ক্রিম
  • নেনহং ওয়ান স্প্রিং
  • স্যানকটাস
  • হানি বেয়ার

পায়ের তালুর চামড়া ওঠার কারণ

শীতের সময় বাতাসে আর্দ্রতার অভাব থাকে এজন্য আর্দ্রতার অভাবে চামড়া শুষ্ক হয়ে ওঠে। এর ফলে অনেকের হাতের সঙ্গে সঙ্গে পায়ের তালুর চামড়া ওঠা শুরু হয়। এমনকি পায়ের তালুর তালুতে ছোট ছোট গর্ত দেখা দেয়। নিচে পায়ের তালুর চামড়া ওঠা দূর করতে নিচে কয়েকটি উপায় উল্লেখ করা হয়েছে;

নারিকেলের তেলঃ আমাদের পায়ের ফোলা এবং ক্ষতস্থান এর ব্যথা কমাতে ফ্যাটি অ্যাসিড খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। আর এই ফ্যাটি এসিড টি নারিকেলে বিদ্যমান। তাই এটি আপনি নিয়মিত খোলা এবং ক্ষতস্থানে দিনে তিন থেকে চারবার লাগাতে পারেন এরপরে আপনার ত্বককে আদ্র এবং নমনীয় রাখবে।

আরো পড়ুনঃ কাঁঠাল খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা জানুন

পেট্রোলিয়াম জেলিঃ কুসুম গরম পানিতে পায়ের ওই ক্ষত এবং খোলা জায়গাটি  কিছুক্ষণ যাবত ধুয়ে ফেলুন। এরপর পেট্রোলিয়াম জেলি পায়ে ভালোভাবে লাগিয়ে নিন। তাহলে খুব দ্রুতই ওই জায়গাটির ফোলা কবে যাবে ।

পায়ের তলায় ব্যথা হলে কি করতে হবে

পায়ের তলায় যদি ব্যথা হয় তাহলে যা করবেন যদি আপনার ওজন বেশি থাকে তাহলে ওজন কমাবেন। দীর্ঘ সময় দাঁড়িয়ে থাকার অভ্যাস না করা, শক্ত জুতা বাদ দিয়ে নরম জুতা পরিধান করা। শক্ত জায়গাতে খালি পায়ে না চলাফেরা করা। এবং পায়ের তালুতে কম ভর দিয়ে চলা।

চিকিৎসা

পায়ের তলায় ব্যথা কমানোর জন্য, ব্যথার আসুক ওষুধ ব্যবহার এবং বরফ ব্যবহার করতে পারেন

  • নরম জুতা ব্যবহার করা
  • খালিপায়ে শক্ত জায়গায় চলাফেরা না করা
  • শক্ত জায়গায় সেন্ডেল বা জুতা ব্যবহার করা
  • অতিরিক্ত ওজন থাকলে কমাতে হবে
  • ব্যথা যদি খুবই তীব্র হয় তাহলে খুব দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া

পায়ে চুলকানি হলে করণীয়

পায়ে চুলকানি হলে নিয়মিত পায়ের যত্ন নিতে হবে পায়ের যত্ন নেওয়ার জন্য এবং চুলকানি দূর করার জন্য নিচে কয়েকটি উপায় উল্লেখ করা হলোঃ

  • যে কোন জায়গা থেকে এসে পা ধুয়ে শুকনো কাপড় দিয়ে মুছতে হবে।
  • পা মসৃণ ও নমনীয়ভাবে রাখতে হলে পেট্রোলিয়াম জেলি বা ক্রিম ব্যবহার করুন।
  • পায়ে নরম জুতা পরিধান করা এবং জুতা দিয়ে যেন বায়ু চলাফেরা করতে পারে সেই রকম জুতা পরিধান করতে হবে।
  • খালি পায়ে এবং শক্ত সেন্ডেল ব্যবহার করে হাটাহাটি করা যাবেনা

কিছু মন্তব্য

নিশ্চয়ই আপনারা এতক্ষণে পায়ের তালুতে ছোট ছোট গর্ত কেন হয় এবং পায়ের তালুর রোগ গুলো কিভাবে সৃষ্টি হয় এবং এগুলো রাবেন কিভাবে নিশ্চয়ই তা বুঝতে পেরেছেন। তাই আমাদের আর্টিকেল যদি আপনাদের খুবই ভালো লাগে তাহলে এটি ফলো বা লাইক করুন ।এবং যেকোনো তথ্য জানার জন্য আমাদের ওয়েবসাইটটি ভিজিট করুন আমাদের ওয়েবসাইটে সকল প্রকার তথ্য দেওয়া রয়েছে। আপনার যে কোন সমস্যার সমাধান পেয়ে যেতে পারেন আমাদের এই ওয়েবসাইট থেকে।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

আরাবি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url