নার্ভের রোগের লক্ষণ ও প্রতিকার - কি করনীয়

নার্ভের রোগের লক্ষণ ও প্রতিকার এবং নার্ভের সমস্যা হলে কি করনীয় তা কি জানতে চান। তাহলে আমাদের পোস্টটি মনোযোগ সহ পড়ুন। কেননা আজ আমরা নার্ভের রোগের লক্ষণ ও প্রতিকার সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। তাহলে জেনে নেওয়া যাক

নার্ভের রোগের লক্ষণ ও প্রতিকার
নার্ভ নার বিভিন্ন ধরনের রয়েছে, যেমন পায়ের নার্ভ, মাথার নার্ভ ইত্যাদি এই সকল নার্ভের বিষয়ে আজ আমরা বিস্তারিত আলোচনা করব।

পোস্ট সূচিপত্রঃ নার্ভের রোগের লক্ষণ ও প্রতিকার - কি করনীয়

নার্ভের রোগের লক্ষণ ও প্রতিকার?;ভূমিকা

এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে আপনারা আজ নার্ভের লক্ষণ ও প্রতিকার গুলো খুব সহজেই জানতে পারবেন। নার্ভের লক্ষণ গুলো কি কি এবং এগুলো কিভাবে প্রতিকার করা যায় এবং এগুলো সমস্যা হলে কিভাবে এর সমাধান এরপর খুঁজে পাওয়া যায়। তার সকল কিছু আজ আমরা বিস্তারিত আলোচনা করব।নার্ভ মানুষের শরীরে কেন হয় এবং এগুলো কিভাবে ভালো হয়, এমনি ভাল হয় নাকি চিকিৎসকের দ্বারা ভালো করতে হয় তা সকল কিছু আজ আপনারা এই আর্টিকেলের মাধ্যমে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

নার্ভের সমস্যা কেন হয়

আমাদের শরীরে একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হচ্ছে নার্ভ। এটি আমাদের শরীরকে সুস্থ রাখতে অনেক সাহায্য করে। আমাদের শরীরে দুই রকমের নার্ভ থাকে, একটি হচ্ছে সেন্টাল নার্ভ পেরিফিনাল নার্ভ।নার্ভ সাধারণত পুষ্টির অভাবের কারণে ও ভিটামিন বি, ভিটামিন বি ২ ভিটামিন বিসি এর অভাবের কারণে নার্ভের সমস্যা দেখা দেয়। আপনার রক্তে যদি সুগারে তাপমাত্রা বেড়ে যায় এর ফলেও আপনার নার্ভের সমস্যা হয়।

আরো পড়ুনঃ কোমরের ব্যথা এড়াবেন কিভাবে তা জানুন

দীর্ঘদিন যাবত ব্যথা নাশক ঔষধ এবং জন্মনিয়ন্ত্রণ করি পিল ইত্যাদি সেবনের ফলে নার্ভের সমস্যা হয়। এছাড়াও অতিরিক্ত ধূমপানের কারণেও নার্ভের সমস্যা হয়।

নার্ভের রোগের লক্ষণ ও প্রতিকার

মানুষের বয়স বাড়ার সাথে সাথে তাদের নার্ভের ক্ষমতা কমে যায় অনেক রোগ বাসা বাসা বাধে। নার্ভের রোগের লক্ষণগুলো হচ্ছেঃ

  • কোন কারণ ছাড়া বিরক্ত হয়ে যাওয়া
  • কোন শব্দ শুনে বা আলোতে বিরক্তি হওয়া
  • চলাফেরা করার সময় শরীরে ব্যথা বেড়ে যাওয়া
  • সময়ে ডিপ্রেশনে থাকা
  • যে কোন কথাতে বিরক্ত হয়ে যাওয়া
  • শরীরে এলার্জি বা শক্তি কমে যায়
  • শরীরের বেশিরভাগ অঙ্গে ব্যথা এবং বমি বমি ভাব হওয়া
  • অতিরিক্ত চলাফেরা অর্থাৎ চলাফেরাই নিয়ন্ত্রণ করা অসম্ভব হয়ে পড়ে।
  • তার জীবনের নতুন কিছু তথ্য এবং নতুন ধরনের কাজকর্ম বুঝতে অসুবিধা হয়ে থাকে।
  • স্মৃতিশক্তি কমে যায়।
  • চলাফেরায় অর্থাৎ হাটাহাটির সময় শারীরিক সমস্যা দেখা দেয়।
  • তার শারীরিক ও মানসিক পরিবর্তন হয়।
  • শুধু শারীরিক ও মানসিক পরিবর্তন নয় এর সঙ্গে সঙ্গে তার কথাবার্তার আচার-আচরণের পরিবর্তন হয়।
  • অনেক সময় হাত পা কাঁপতে থাকে।
  • কোমরে এবং কোমরের নিচের দিকে ব্যথা সৃষ্টি হয়।
  • মাথা ব্যথা করে বেশিরভাগ সময়ে।
  • শরীরের পেশির খিচুনি।

নার্ভের রোগের প্রতিকারঃ

নার্ভের রোগের প্রতিকার করার জন্য আপনাকে সর্বপ্রথম আপনার জীবনযাত্রাকে পরিবর্তন করতে হবে। বেশি করে পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে যাতে আপনার শরীরের ভিটামিনের অভাব দূর হয়ে যায়। ব্যাথা নাশক ঔষধ সেবন করা থেকে বিরত থাকতে হবে। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ব্যথা না শোক ঔষধ ব্যবহার করা যাবে না। অতিরিক্ত ধূমপান বা ধূমপান থেকে সম্পূর্ণ বিরত থাকতে হবে। জন্মনিয়ন্ত্রণ বড়ি পিল এগুলো অতিরিক্ত সেবন করা থেকে দূরে থাকতে হবে। তাহলে আপনি খুব সহজে নার্ভের মতো রোগ প্রতিকার করতে পারবেন।

আন্তর্জাতিক জাতিসংঘ থেকে প্রকাশিত হয় সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে যে পাঁচটি উপায় দিয়েছেন এই পাঁচটি উপায় এর মাধ্যমে নার্ভের রোগের প্রতিকার করা সম্ভব। সেই পাঁচটি উপায় হচ্ছেঃ

নার্ভের রোগের প্রতিকারের জন্য আপনাকে সর্বদা ভিটামিন যুক্ত খাবার খেতে হবে ভিটামিন যুক্ত খাবার অনেক রয়েছে সেগুলো হচ্ছে ভিটামিন সি, ভিটামিন বি, ভিটামিন ডি, ভিটামিন ই, ভিটামিন বি২, ভিটামিন বি৬, আপনাদের মধ্যে যাদের স্নায়ু অর্থাৎ আপনার দেহের পেশীতে দুর্বল অনুভব করেন এবং চলাফলের কষ্ট পান তাহলে আপনি নিয়মিত এই ধরনের ভিটামিন খাবার খাবেন।

নিয়মিত ব্যায়াম করতে হবে নিয়মিত ব্যায়াম করার ফলে আমাদের শরীর এর স্নায়ু মজবুত ও শক্ত থাকে। যা আমাদের নার্ভের সমস্যাকে দূর করতে খুবই কার্যকরী। নার্ভের সমস্যা থেকে আপনি যদি মুক্তি পেতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই পুষ্টিকর খাবারের পাশাপাশি নিয়ম ব্যায়াম ও শরীরচর্চা করতে হবে।

নার্ভের সমস্যা দেখা দিলে ডিপ্রেশন মাথাব্যথা ও শারীরিক সমস্যা দেখা দেয় এর জন্য আপনাকে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। তাহলে আপনি আপনার নার্ভের সমস্যাগুলো সমাধান করতে পারেন।

এছাড়াও আপনাদের ভেতরে যাদের হাটা চলা খাওয়া-দাওয়া গোসল করা অর্থাৎ সকল শারীরিক কাজে ও মানসিক কাজে সমস্যা দেখা দেয় তাদেরকে কিছু থেরাপি রয়েছে সেই থেরাপি অনুযায়ী কাজ করা।

আরো পড়ুনঃ মোটা হওয়া ঘরোয়া উপায় জানুন

পায়ের নার্ভের সমস্যা

আপনার পায়ে যদি নার্ভ হয়ে থাকে তাহলে আপনার পায়ে ঝিমঝিম করে উঠবে। এবং আপনি চলাফেরার ভারসাম্য হারিয়ে ফেলবেন। এবং পায়ে তীব্র যন্ত্রণা সৃষ্টি হবে। নার্ভের সমস্যা পায়ে দেখা দিলে আপনার পায়ে রক্ত চলাচলে বাধা সৃষ্টি হয় এর ফলে আপনার ঝিমঝিম করে যার ফলে আপনি চলাফেরা করতে ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন। এবং চলাচলের সময় রাস্তায় পড়ে যান এবং একেবারেই। পা দুটো আপনার প্যারালাইসিস এর মত হয়ে যায় যার ফলে আপনার পা নড়াচড়া করাতে পারেন না।

মাথার নার্ভের সমস্যা

মাথার অসহ্য যন্ত্রণা নার্ভের রোগের প্রধান উপসর্গ। যারা এক নাগালে কম্পিউটারে বা বিভিন্ন কাজ করে থাকে তাদের ঘাড় বা মাথার সমস্যা দেখা দেয়। মাথা তীব্র যন্ত্রণা কারণ নার্ভের সমস্যা। আমাদের সকলের ঘাড়ের পেছনের দিকে সি ২ ও সি ৩ নামক দুটি নার্ভ থাকে। বিভিন্ন কারণে জন্য এবং বিভিন্ন সমস্যার কারণে আমাদের এই নার্ভগুলো নষ্ট এবং ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে যায়। তখন আমাদের ওই জায়গাতে ভয়াবহ যন্ত্রণা ও ব্যথা সৃষ্টি হয়।

আরো পড়ুনঃ ডায়াবেটিসের সমস্যা হলে কি কি হয়

যখন আমরা এক নজরে মোবাইল বা কম্পিউটার ও টিভির দিকে তাকিয়ে থাকি তখন আমাদের ঘাড়ের নার্ভে চাপ সৃষ্টি হয় এর ফলে নার্ভের সমস্যা হয়। তখন আমাদের ঘাড়ে খুব তীব্র ব্যথা জেগে ওঠে। এছাড়াও আমরা যখন সেলুনে চুল কাটতে চাই তখন আমরা তাদের দিয়ে আমাদের মাথা বা ঘাড় মাসাজ করিয়ে নিয়ে তখন আপনি যদি অন অভিজ্ঞ সেলুনের হাতে পড়েন তখন তার দ্বারা যদি আপনার ঘাড়ের নাড়বে জোরে আঘাত পড়ে এর ফলে আপনার নাক ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

নার্ভের সমস্যা হলে কি করনীয়

  • বেশি করে পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে যাতে
  • চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ব্যথা না শোক ঔষধ ব্যবহার করা যাবে না
  • অতিরিক্ত ধূমপান বা ধূমপান থেকে সম্পূর্ণ বিরত থাকতে হবে
  • জন্মনিয়ন্ত্রণ বড়ি পিল এগুলো অতিরিক্ত সেবন করা থেকে দূরে থাকতে হবে
  • অতিরিক্ত সময় ধরে মোবাইল বা কম্পিউটার ও টিভির স্কিনের দিকে তাকিয়ে থাকা যাবে না।
  • এমন কোন কাজ করা যাবে না যাতে আপনার নার্ভে অতিরিক্ত চাপ সৃষ্টি হয়
  • সেলুনে গিয়ে চুল কাটার সময় মাথা ম্যাসাজ করা যাবে না
  • ডার্গ সেবন করা যাবেনা
  • অ্যালকোহল বা মদ্যপান থেকে বিরত থাকতে হবে
  •  ভিটামিন বি, ভিটামিন বি ২ ভিটামিন বিসি খাদ্য তালিকায় রাখতে হবে।
  • সবুজ শাকসবজি দুধ ও ডিম বেশি করে খেতে হবে
  • স্ট্রেচিংব্যায়াম করতে হবে
  • আপনাদের যেসব অঙ্গে ঝিঝি ঝিনঝিন লাগে সেইসব অঙ্গে স্ট্রেচিং করতে হবে
  • ব্যথা না শোক ও ঝিনঝিন জায়গাতে নারিকেলের তেল এবং অলিভ অয়েলের তেল দিয়ে মালিশ করতে হবে

নার্ভের ভিটামিন কি

নার্ভের ভিটামিন হচ্ছে, 

  • ভিটামিন
  • ভিটামিন-২
  • ভিটামিন-৩
  • ভিটামিন বি
  • ভিটামিন সি
  • ভিটামিন ডি

নার্ভের রোগের লক্ষণ ও প্রতিকার - শেষ কথা

এই আর্টিকেল থেকে আপনারা নিশ্চয়ই নার্ভের রোগের লক্ষণ ও প্রতিকার গুলো বিস্তারিত জানতে পেরেছেন এবং নার্ভের রোগ কিভাবে ভালো হয় এগুলো আপনি ঘরে বসে থেকে ভালো করতে পারবেন কিনা তাও জানতে পেরেছেন আমাদের এই আর্টিকেল থেকে। 


অর্থাৎ সব প্রকার সর্বপ্রথম সকল তথ্য আমাদের ওয়েবসাইট থেকে সরাসরি পেটে আমাদের ওয়েবসাইটটি নিয়মিত ভিজিট করুন এবং ফলো করুন। এবং এতক্ষণ যাবৎ আমাদের আর্টিকেলটি মনোযোগ সহ করার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

আরাবি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url