অনলাইন ট্রেন টিকেট বুকিং ২০২৪ - অগ্রিম টিকিট ২০২৪

অনলাইন ট্রেন টিকেট বুকিং ২০২৪ করতে এবং ট্রেনের অগ্রিম টিকিট অনলাইন এর মাধ্যমে কাটতে চান। কিন্তু আপনারা অনলাইন ট্রেন টিকেট বুকিং করতে জানেন না। তাহলে আমাদের আর্টিকেলটি পড়ুন। কেননা এই আর্টিকেলে আজ আমরা অনলাইন ট্রেন টিকেট বুকিং ২০২৪ এর সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেছি।

অনলাইন ট্রেন টিকেট বুকিং
এছাড়াও আপনি যদি ট্রেন ও ট্রেনের টিকিট সম্পর্কে জানতে চান তাহলেও আপনি আমাদের আর্টিকেলটি ভিজিট করতে পারেন। কেননা আমরা এই আর্টিকেলে অনলাইনে ট্রেনের টিকিট এবং টেনের বিভিন্ন তথ্য দিয়েছি। চলুন কথা না বাড়িয়ে জেনে নেই

পোস্ট সূচিপত্রঃ অনলাইন ট্রেন টিকেট বুকিং ২০২৪

ভূমিকা

অনলাইন এর মাধ্যমে ট্রেনের টিকেট কাটা খুবই একটি ঝামেলা নয়। আপনি রেলওয়ে ওয়েবসাইটে এবং আরো অন্য একটি ওয়েবসাইটে আপনার মোবাইল এর মাধ্যমে chrome ব্রাউজার দিয়ে ট্রেনের টিকেট ক্রয় করতে পারেন আজ আমরা আমাদের এই আর্টিকেলে কিভাবে আপনারা অনলাইন ট্রেন টিকেট বুকিং ২০২৪ করবেন এবং সেই মাধ্যম দিয়ে কিভাবে স্টেপ বাই স্টেপ সঠিক নিয়মে কাজ করে টিকেট বুকিং করবেন তা বিস্তারিত আলোচনা করেছি।

১২১২আরো পড়ুনঃ লুডু খেলে টাকা ইনকাম করার উপায়

বর্তমানে এখন অনলাইনে আপনি রেলওয়ে ওয়েবসাইট থেকে ট্রেনের টিকিট কাটতে খুবই ঝামেলা হয়। কিন্তু আপনি www.shohoz.com এর মাধ্যমে খুব সহজেই ট্রেনের টিকেট বুকিং অথবা কাটতে পারবেন। কারণ এই সহজ ডট কম ওয়েবসাইটটি বাংলাদেশ রেলওয়ের ট্রেনের টিকেট বিক্রি করার জন্য পাঁচ বছরের চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। নিচে এই সকল সম্পর্কে বিস্তারিত আপনাদের জানাবো। চলুন কথা না বাড়িয়ে সকল কিছু জেনে নেই।

রেলওয়ে টিকেট বুকিং

আমরা ঘরে বসে থেকে অনলাইনে এর মাধ্যমে রেলওয়ে টিকেট বুকিং করতে পারি। তো আপনারা হয়তো অনেকেই এই টিকিট বুকিং করা জানেন না আজ আমরা আমাদের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে তা আপনাদেরকে জানাবো কিভাবে টিকিট বুকিং করতে হয়। এর জন্য প্রয়োজন হয় একটি টিকেট কাটার ওয়েবসাইট, চলুন জেনে নেই।

  • টিকেট বুকিং করার জন্য আমরা shohoz অ্যাপ ব্যবহার করে রেলওয়ে পোর্টাল ওয়েব থেকে অনলাইনে টিকেট বুকিং করতে পারব
  • এর জন্য আমাদেরকে একটি সার্চ ইঞ্জিন অর্থাৎ google ক্রোম ব্রাউজার ব্যবহার করতে হবে
  • গুগল ক্রোম ব্রাউজারে আসার পরে আমাদেরকে www.shohoz.com লিখে সার্চ দিতে হবে। তারপর আমাদের সামনে shohoz এর ওয়েবসাইট চলে আসবে।
  •  shohoz এ ওয়েবসাইট আসার পর রেলওয়ে টিকিট বুকিং করার জন্য  shohoz এ ওয়েবসাইটের থ্রি ডট আইকনে ক্লিক করে, টেন এর টিকিট অপশনে চাপ দিতে হবে।
  • ট্রেনের টিকেট এর অপশনে ক্লিক করার পর আপনাদের সামনে একটি পেজ চালু হবে। এই পেজটি মূলত আপনাদের রেজিস্ট্রেশন করার কথা বলবে, তো আপনারা রেজিস্ট্রেশন করে নিবেন।
  • রেজিস্ট্রেশন এর সময় From এর জায়গায় আপনার নিজ স্টেশনের নাম, এবং To এর জায়গায় আপনি যে স্টেশনে যাবেন তার নাম। তারিখের জায়গায় আপনি যে দিনের ট্রেনে চড়বেন সেদিনের তারিখ যেতে হবে। চয়েজ এর জায়গায় আপনি কোন ট্রেনে ভ্রমণ করবেন সেই ট্রেনের নাম দিতে হবে। তারপরে আপনাকে sharch trains করতে হবে।
  • তারপর পেমেন্ট অপশনে গিয়ে আপনি কোন অ্যাপস(বিকাশ, নগদ, ডাচ-বাংলা , উপায় অ্যাপ) এর মাধ্যমে টাকা পরিশোধ করবেন সেই অ্যাপটিতে ক্লিক করে টিকিটের মূল্য পরিশোধ করতে হবে।
  • আপনার টাকা পরিশোধ হওয়ার সাথে সাথে আপনাকে একটি পেমেন্ট সফল হওয়ার মেসেজ দেবে। এবং তখন আপনার রেলওয়ে টিকিট বুকিং সফল হবে। মেসেজে আপনার টিকিট বুকিং রেফারেন্স নম্বর ও কোথায় থেকে কোথায় ভ্রমণের জন্য টিকিট কেটেছেন তার বিবরণ অন্তর্ভুক্ত থাকবে।

ই-টিকেট (ওয়েবসাইট)

ই টিকেট বলতে, ইলেকট্রিক টিকেট বোঝায়। এবার ইলেকট্রিক টিকেট কি, ইলেকট্রিক টিকেট হচ্ছে আমরা বাসায় থেকে অনলাইনের মাধ্যমে ঘরে বসে থেকে টিকেট কাটার মাধ্যমকে ইলেক্ট্রিক টিকেট বলে। আমরা অনেক সময় রেলওয়ে স্টেশনে যাওয়ার সময় পাইনা এমনকি অনেক ভিড়াভিড়ি জন্য টিকিট কাটতে অনেক সমস্যা হয় এর জন্য সাধারণত রেলওয়ে মন্ত্রণালয় ই টিকেট এর ব্যবস্থা করেন। এই টিকিটের মাধ্যমে আমরা কম্পিউটারের দোকানে এমনকি নিজে ঘরে বসে থেকে অনলাইনের মাধ্যমে ট্রেনের টিকেট কাটতে পারি। 

১৩১৩আরো পড়ুনঃ কোমরের ব্যথা কেন হয়, তা এড়াবেন কিভাবে জানুন

এর ফলে আমাদের অনেক উপকার হয়, সময় বাজে এবং যাতায়াত ভাড়া ও হয়রানি থেকে মুক্তি পাই। আমরা দেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে অর্থাৎ বিদেশ থেকেও অনলাইনে এই টিকেট এর মাধ্যমে ট্রেনের টিকেট কাটতে পারি।

ট্রেনের টিকিট কাটার অ্যাপস 

ট্রেনের টিকেট কাটার নিয়ম সঠিকভাবে অনুসরণ করলে আপনি খুব সহজেই ট্রেনের টিকেট কাটতে পারবেন। আপনি যদি মোবাইলে ট্রেনের টিকেট কাটতে চান তাহলে আপনাকে ট্রেনের টিকেট কাটার অ্যাপ ওপেন করতে হবে। তারপর এই অ্যাপ রেজিস্ট্রেশন না করা থাকলে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে আর যদি রেজিস্ট্রেশন করা থাকে তাহলে রেজিস্ট্রেশন করা মোবাইল নাম্বার ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করতে হবে। লগইন করার পর যে পেজটি আসবে সেখানে আপনি ট্রেনের টিকেট কাটার সম্পর্কে অনেক অপশন দেখতে পাবেন।

যদি আপনারা ট্রেনের টিকেট কিনতে চান তাহলে আপনাদেরকে Purchase অপশনে ক্লিক করুন। যদি আপনারা ট্রেনের সম্পর্কিত তথ্য জানতে চান সে ক্ষেত্রে আপনারা Information অপশনে ক্লিক করুন। এর ফলে এখানে আপনারা যেদিন ভ্রমণ করবেন সেদিনকে কোন ট্রেন চালু রয়েছে, এবং ট্রেনের চালু হওয়ার সময় সম্পর্কিত তথ্য জানতে পারবেন। এছাড়াও আরো অনেক বিভিন্ন রকম অপশন রয়েছে যা থেকে আপনি ট্রেন সম্পর্কিত পুরো ধারণা পেয়ে যাবেন।

অনলাইন ট্রেন টিকেট বুকিং ২০২৪

বাংলাদেশের রেলওয়ে মন্ত্রণালয় অনলাইন ট্রেন টিকেট বুকিং ২০২৪ করার জন্য এবং অনলাইনে টিকিট বিক্রির জন্য shohoz নামক ওয়েবসাইটের সাথে আগামী পাঁচ বছরের চুক্তি করেছে। অর্থাৎ আপনি অনলাইন ট্রেন টিকেট বুকিং করতে চান তাহলে আপনাকে www.shohoz.com এ গিয়ে টিকেট বুকিং করতে হবে। নিচে আপনারা কিভাবে www.shohoz.com থেকে ট্রেনের টিকেট বুকিং করবেন তা বিস্তারিত উল্লেখ করা হলোঃ

  • টিকেট বুকিং করার জন্য আমরা shohoz অ্যাপ ব্যবহার করে রেলওয়ে পোর্টাল ওয়েব থেকে অনলাইনে টিকেট বুকিং করতে পারব
  • এর জন্য আমাদেরকে একটি সার্চ ইঞ্জিন অর্থাৎ google ক্রোম ব্রাউজার ব্যবহার করতে হবে
  • গুগল ক্রোম ব্রাউজারে আসার পরে আমাদেরকে www.shohoz.com লিখে সার্চ দিতে হবে। তারপর আমাদের সামনে shohoz এর ওয়েবসাইট চলে আসবে।
  •  shohoz এ ওয়েবসাইট আসার পর রেলওয়ে টিকিট বুকিং করার জন্য  shohoz এ ওয়েবসাইটের থ্রি ডট আইকনে ক্লিক করে, টেন এর টিকিট অপশনে চাপ দিতে হবে।
  • ট্রেনের টিকেট এর অপশনে ক্লিক করার পর আপনাদের সামনে একটি পেজ চালু হবে। এই পেজটি মূলত আপনাদের রেজিস্ট্রেশন করার কথা বলবে, তো আপনারা রেজিস্ট্রেশন করে নিবেন।
  • রেজিস্ট্রেশন এর সময় From এর জায়গায় আপনার নিজ স্টেশনের নাম, এবং To এর জায়গায় আপনি যে স্টেশনে যাবেন তার নাম। তারিখের জায়গায় আপনি যে দিনের ট্রেনে চড়বেন সেদিনের তারিখ যেতে হবে। চয়েজ এর জায়গায় আপনি কোন ট্রেনে ভ্রমণ করবেন সেই ট্রেনের নাম দিতে হবে। তারপরে আপনাকে sharch trains করতে হবে।
  • তারপর পেমেন্ট অপশনে গিয়ে আপনি কোন অ্যাপস(বিকাশ, নগদ, ডাচ-বাংলা , উপায় অ্যাপ) এর মাধ্যমে টাকা পরিশোধ করবেন সেই অ্যাপটিতে ক্লিক করে টিকিটের মূল্য পরিশোধ করতে হবে।
  • আপনার টাকা পরিশোধ হওয়ার সাথে সাথে আপনাকে একটি পেমেন্ট সফল হওয়ার মেসেজ দেবে। এবং তখন আপনার রেলওয়ে টিকিট বুকিং সফল হবে। মেসেজে আপনার টিকিট বুকিং রেফারেন্স নম্বর ও কোথায় থেকে কোথায় ভ্রমণের জন্য টিকিট কেটেছেন তার বিবরণ অন্তর্ভুক্ত থাকবে।

অর্থাৎ আপনি আমাদের দেখানো নিয়মগুলো যদি সঠিকভাবে করতে পারেন তাহলে আপনি অনলাইন ট্রেন টিকেট বুকিং করতে পারবেন।

www.railway.gov.bd ticket

www.railway.gov.bd ticket এটা লিখে আপনি যদি গুগল ক্রোম ব্রাউজারে গিয়ে সার্চ দেন তাহলে আপনার সামনে বাংলাদেশ রেলওয়ের মন্ত্রণালয়ের সকল খবরাদি পাবেন। এবং বাংলাদেশ রেলওয়ের ট্রেনের টিকেট এর বিষয়ে, অর্থাৎ ট্রেনের টিকেট কিভাবে কাটতে হয় এবং কোথায় থেকে কাটতে হয় এবং কোন দিনে কোন ট্রেন চালু রয়েছে এবং কোন দিনের ট্রেন বন্ধ রয়েছে এই সকল তথ্য যাচাই জন্য আপনি এই ওয়েবসাইটটি ব্যবহার করতে পারেন।

ট্রেনের টিকিট ক্রয়

ট্রেনের টিকেট ক্রয় করার জন্য আপনার মোবাইল বা ডেস্কটপ থেকে eticket.railway.gov.bd ওয়েবসাইটে যেতে হবে। তারপর আপনি নতুন ইউজার হয়ে থাকলে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। এরপর আপনার স্টেশন দেখে ট্রেন ছাড় দিয়ে আপনার টিকিট কাটার আগে পেমেন্ট ক্রয় করে টিকেট ক্রয় করতে হবে।

অনলাইনে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম সম্পর্কে আরো জানতে নিচে পড়ুনঃ

  • প্রথমে এন আই ডি কার্ড ভেরিফাই করুন
  • মোবাইল ভেরিফাই করুন
  • ট্রেন সার্চ করুন
  • ট্রেনের আসন বাছাই করুন
  • যাত্রীর অর্থাৎ আপনার তথ্য দিন
  • ট্রেনের টিকেটের মূল্য পরিশোধ করুন
  • টিকেট প্রিন্ট করুন

এই সকল ভাগগুলো পূরণ করলে আপনি ট্রেনের টিকিট ক্রয় করতে পারবেন। ট্রেনের টিকেট ক্রয় করার জন্য আপনাকে অবশ্যই এই সকল ধাপ ও স্টেপগুলো নিয়ম অনুযায়ী পূরণ করতে হবে।

ট্রেনের অগ্রিম টিকিট অনলাইন

ট্রেনের অগ্রিম টিকিট অনলাইন থেকে ক্রয় করার জন্য আপনার ক্রোম ব্রাউজার থেকে eticket.railway.gov.bd ওয়েবসাইটে যেতে হবে। তারপর আপনি নতুন ইউজার হয়ে থাকলে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। এরপর আপনার স্টেশন দেখে ট্রেন ছাড় দিয়ে আপনার টিকিট কাটার আগে পেমেন্ট  করে টিকেট বুকিং করতে হবে। নিচে টিকেট বুকিং এর সকল ধাপগুলো উল্লেখ করা হলো;

প্রথমে এনআইডি ভেরিফাই করুনঃ বাংলাদেশ ট্রেনে যাতায়াতের জন্য প্রতিটা যাত্রীকে nid ভেরিফাই করতে হবে। এর জন্য প্রথমে আপনাকে রেলওয়ের ওয়েবসাইটে আপনি আপনার এন আইডি নম্বর ও জন্ম তারিখ দিয়ে ভেরিফাই করুন। এটি শুরু করার জন্য রেজিস্ট্রেশনে ক্লিক করতে হবে। রেজিস্ট্রেশন অপশনে যে সকল ইনফরমেশন যাবে সকল ইনফরমেশন আপনাকে পূরণ করতে হবে তাহলে এই রেজিস্ট্রেশন অপশনটি সম্পন্ন হবে।

আরো পড়ুনঃ অংক করে টাকা ইনকাম করার উপায়

মোবাইল ভেরিফাই করুনঃ প্রথম ধাপ সম্পন্ন করার পরে আপনার ফোনে 6 ডিজিট এর একটি ভেরিফিকেশন এর কোড আসবে এবং এই কোড দিয়ে আপনাকে ভেরিফাই করতে হবে। আপনার ফোনে ভেরিফিকেশন কোডটি আসার পর ৪৫ সেকেন্ড এর মধ্যে সঠিকভাবে লিখে কন্টিনিউ অপশনে ক্লিক করতে হবে। এই সকল স্টেপগুলো করলে আপনার একাউন্টটি চালু হয়ে যাবে তারপর আপনার একাউন্টে লগইন করে ফেলতে হবে।

ট্রেন সার্চ করুনঃ দ্বিতীয় ধাপ শেষ হওয়ার পরে পেজে গিয়ে হোম এ ফিরে যেতে হবে এবং যাওয়ার পরে কোন স্টেশন থেকে কোন স্টেশনে যাবেন ও যাত্রার তারিখ দিয়ে সিলেক্ট করতে হবে।

ট্রেনের আসন বাছাই করুনঃ তৃতীয় ইস্টে পূরণ করার পরে এবার আপনি ট্রেনের আসন বাছাই করার অপশনে ক্লিক করুন। আপনি এখানে একসঙ্গে একটা থেকে চারটা পর্যন্ত সিট আসন সংখ্যা বাছাই করতে পারবেন অর্থাৎ চারটি সিট আপনি ক্রয় করতে পারবেন। এই সকল তথ্য দেওয়ার পর কন্টিনিউ বাটনে ক্লিক করতে হবে।

যাত্রীর অর্থাৎ আপনার তথ্য দিনঃ এই স্টেপে আপনি যতগুলো সিট ও আসন সংখ্যা বুকিং করেছেন তার যাত্রীর নাম এবং সেগুলো শিশু ও বয়স্ক মানুষ কিনা তা সিলেক্ট করুন। কে ১২ বছর বয়সি হলে প্যাসেঞ্জার টাইপ চিল্ড এ ক্লিক করুন। শিশু সিলেক্ট করলে তার ভাড়া যথাক্রমে কমে যাবে।

ট্রেনের টিকেটের মূল্য পরিশোধ করুনঃ এরপর আপনি কোন মাধ্যমের টিকেটের টাকা পরিশোধ করবেন। তা সিলেক্ট করে অনলাইনে পেমেন্ট করতে হবে। পেমেন্ট করা হয়ে গেলে প্রসেস টু পেমেন্ট অপশনে ক্লিক করুন। তারপর আপনাকে মেসেজ দিয়ে তারা জানাবে যে আপনার পেমেন্টটি সম্পন্ন হয়েছে। এবং সিলেক্ট করার ১৫ মিনিট এর মধ্যে আপনাকে আপনার পেমেন্টটি সম্পন্ন করতে হবে। না হলে আপনাকে আবার নতুন করে সকল কিছু ইনফরমেশন দিয়ে আবার পুনরায় টিকেট ক্রয় করতে হবে ।

অতএব আপনি এই সকল ধাপগুলো সঠিকভাবে মেনে নিয়মের সাথে পূরণ করলে আপনি ট্রেনের অগ্রিম টিকিট অনলাইন থেকে বুকিং বা ক্রয় করতে পারবেন।

কিছু মন্তব্য - অনলাইন ট্রেন টিকেট বুকিং ২০২৪

প্রিয় বন্ধুরা আমরা আশা করতে পারি যে আপনি এতক্ষণে হয়তো অনলাইন ট্রেন টিকেট বুকিং ২০২৪ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য পেয়েছেন। এবং এখন আপনারা অনলাইন থেকে ট্রেনের টিকিট বুকিং করতে পারবেন এছাড়াও অগ্রিম অনলাইনে ট্রেনের টিকিট বুকিং করে আগে থেকে আপনারা আপনাদের জায়গা দখল করে রাখতে পারবেন।

১৪১৪আরো পড়ুনঃ রোবট ও রোবোটিক্স কি

এজন্য অবশ্যই আপনাকে অনলাইন ট্রেন টিকেট বুকিং সম্পর্কে সঠিক জ্ঞান ও ধারণা প্রয়োজন তাহলে আপনি খুব সহজে বাসায় বসে থেকে মোবাইলের মাধ্যমে অনলাইনে ট্রেনের টিকিট বুকিং করতে সক্ষম হবেন। আশা করি যে আমাদের এই আর্টিকেলটি আপনাদের অনেক উপকারে এসেছে। এছাড়াও আমাদের আর্টিকেলটির সঙ্গে আপনাদের মূল্যবান সময়টি ব্যয় করার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

আরাবি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url